জন্ম মৃত্যু নিবন্ধন আবেদন যেভাবে করতে হয়

মৃত্যু নিবন্ধন আবেদন


একটি পরিবারে কারো যখন মৃত্যু হয়, তখন শোকসন্তপ্ত সদস্যদের প্রিয় মানুষটিকে হারানোর কারনে মাথায় অনেক কিছুই কাজ করে না। তখন সঠিক সময়ে মৃত্যু নিবন্ধণ করা হয়ে উঠে না। কিন্তু মৃত্যু নিবন্ধণ ওই পরিবারটির জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। মৃত ব্যাক্তির ব্যাংকের টাকা উত্তোলন, লাইফ ইনস্যুরেন্সের অর্থ প্রাপ্তি, স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি ভাগ, কোম্পানির মালিকানা, নাম জারি, মৃত ব্যক্তি চাকুরীজীবী হলে তার পেনশনের টাকা উত্তোলন ইত্যাদি কাজে মৃত্যু নিবন্ধন প্রয়োজন। 

কত দিনের মধ্যে মৃত্যু নিবন্ধন করতে হয়?

মৃত্যুর ৪৫ দিনের মধ্যে মৃত্যু নিবন্ধন করলে কোন ফি লাগবে না। এরপর থেকে পাঁচ বছর পর্যন্ত ২৫ টাকা ফি দিতে হবে। তারও পরে করলে ৫০ টাকা ফি দিতে হবে।

মৃত্যু নিবন্ধন করতে যা যা লাগবে

১) মৃত ব্যক্তির অনলাইন জন্ম নিবন্ধন।
২) তার জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর।
৩) মৃত ব্যক্তির স্ত্রী/স্বামীর জন্ম নিবন্ধন
৪) মৃত ব্যক্তির স্ত্রী/স্বামীর জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর।
৫) জিনি মৃত্যু নিবন্ধন আবেদন করছেন, তার জন্ম নিবন্ধন এবং জাতীয় পরিচয়পত্র।
৬) মোবাইল নম্বর।


যেভাবে মৃত্যু নিবন্ধন করবেন

যে ব্যক্তির মৃত্যু নিবন্ধন করতে চাচ্ছেন, সেই ব্যক্তির অনলাইন জন্ম নিবন্ধন নম্বরটি প্রথমে লাগবে। নিচে দেয়া লিংকে যেয়ে “জন্ম নিবন্ধন নম্বর” ঘরে তার সতের ডিজিটের নম্বরটি দিতে হবে এবং জন্ম তারিখের ঘরে জন্ম তারিখ দিতে হবে। প্রথমে দিন/মাস/সাল এভাবে লিখুন। তারপর অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করুন। নিবন্ধনটি যদি অনলাইন করা থাকে তাহলে ঐ ব্যক্তির নাম, বাবার নাম ও মায়ের নাম নিচে দেখাবে। সবকিছু ঠিক থাকলে “নির্বাচন করুন” বাটনে ক্লিক করুন। এবার কনফার্ম করুন।
যেখান থেকে আপনি মৃত্যু নিবন্ধনটি নিতে চাচ্ছেন তার ঠিকানা নির্বাচন করতে হবে, অর্থাৎ মৃত ব্যক্তির ইউনিয়ন বা পৌরসভা বা সিটি কর্পোরেশন। দেশ, বিভাগ, জেলা, উপজেলা বা সিটি কর্পোরেশন, পৌরসভা বা ইউনিয়ন নির্বাচন করুন। তারপর পরবর্তী বাটনে ক্লিক করুন। এবার মৃত্যুর তারিখ দিতে হবে এবং মৃত্যুর কারণ নির্বাচন করতে হবে। তারপর স্বামী/স্ত্রীর জন্ম নিবন্ধন নম্বর ও জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর থাকলে দিন এবং স্বামী বা স্ত্রীর নাম বাংলা ও ইংরেজিতে লিখুন যদি ওনি বিবাহিত হয়ে থাকে। 

মৃত্যু নিবন্ধন আবেদন Click Here

এবার মৃত্যু স্থানের বিবরণ দিতে হবে অর্থাৎ মৃত ব্যক্তির ঠিকানার বিবরণ দিতে হবে। এখানেও আগের মত সিলেক্ট করতে হবে। সিলেক্ট করা হয়েগেলে পরবর্তী বাটনে ক্লিক করুন। তথ্য প্রদানকারী অথবা আবেদনকারীর তথ্য দিতে হবে। অর্থাৎ আপনি যে ওনার মৃত্যু নিবন্ধন করছেন, আপনার সাথে ঐ মৃত ব্যক্তির সম্পর্ক কি এবং আপনার সম্পূর্ণ তথ্য দিতে হবে। আপনার নিবন্ধন নম্বর, জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর, নাম ও মোবাইল নম্বর দিতে হবে। সবকিছু ঠিক থাকলে এবার এক নজরে দেখাবে আপনার আবেদন ফরমটি। ভালোভাবে দেখে নিন কোন প্রকার ভুল রয়েছে কিনা? ভুল থাকলে পূর্ববর্তী বাটনে ক্লিক করে ভুলটি সংশোধন করে আসতে হবে। আর ভুল না থাকলে সাবমিট বাটনে ক্লিক করুন। মনে রাখতে হবে, একবার সাবমিট করা হয়েগেলে আর সংশোধন করা যাবে না। মৃত্যুর তারিখটি চাইলে আবার দিতে হবে এবং আপনার মোবাইলে একটি OTP যাবে, যা সংরক্ষণ করতে হবে। এবার আবেদনপত্রটি প্রিন্ট দিয়ে আপনার নিবন্ধন অফিসে দাখিল করতে হবে। আবেদন পত্রটি সাবমিট করার পরে যে নির্ধারিত তারিখের মধ্যে জমা দিতে বলা হয়েছে, সেই নির্ধারিত তারিখের মধ্যে অবশ্যই নিবন্ধন অফিসে আবেদনপত্রটি এবং আবেদনপত্র ফিলাপ করতে যে সকল ডকুমেন্ট প্রয়োজন হয়েছে সবগুলো দাখিল করতে হবে। নির্ধারিত তারিখের পরে আপনার আবেদনটি বাতিল হয়ে যাবে।

আরও পড়ুন: নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন যেভাবে করবেন।

Post a Comment

Previous Post Next Post