নায়াগ্রা জলপ্রপাত কোথায় অবস্থিত এবং কিভাবে সৃষ্টি হলো এই জলপ্রপাতটি?

নায়াগ্রা জলপ্রপাত কোথায় অবস্থিত
নায়াগ্রা জলপ্রপাত


পৃথিবীতে এমন অনেক কিছু আছে যা আমাদের অবাক করে। নায়াগ্রা জলপ্রপাত তার মধ্যে একটি। এটি বিশ্বের বৃহত্তম জলপ্রপাত। নায়াগ্রা জলপ্রপাত প্রকৃতির এক মহাবিস্ময়। এই জলপ্রপাতের নাম শোনেননি এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। নায়াগ্রা জলপ্রপাত সমস্ত প্রকৃতি পিপাসু পর্যটকদের জন্য একটি আকর্ষণীয় স্থান। এখানে গেলে আপনি মনে করতে পারে যে আকাশ বুঝি ভেঙ্গে পড়ছে এবং পৃথিবীর সমস্ত পানি বৃষ্টি আকার ধারণ করে সিঁড়ি বেয়ে বেয়ে মাটিতে নেমে আসছে। নায়াগ্রা জলপ্রপাত সম্পর্কে কিছু চমকপ্রদ ও বিস্ময়কর তথ্য নিয়ে আজকের এই আয়োজন।

কোথায় অবস্থিত নায়াগ্রা জলপ্রপাত?

নায়াগ্রা জলপ্রপাত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক এবং কানাডার ওন্টারিও প্রদেশের মধ্যে অবস্থিত। জলপ্রপাতটিতে পৌঁছানো খুব সহজ, কারণ এটি বিমান, সড়ক এবং রেলপথের সাথে ভালভাবে সংযুক্ত। নিকটতম বিমানবন্দরগুলি হল, নিউইয়র্কের বাফেলো নায়াগ্রা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এবং কানাডার ওন্টারিওতে লেস্টার বি. পিয়ারসন্ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর অবস্থিত। নায়াগ্রা জলপ্রপাত টরন্টো থেকে ১২৮ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।

যেখান থেকে নায়াগ্রার উৎপত্তি

ধারণা করা হয় আজ থেকে প্রায় ১০ হাজার নয়শ বছর পূর্বে এই জলপ্রপতি চিহ্নিত করা হয়েছে। উত্তর আমেরিকার মধ্যে এটি সবচেয়ে শক্তিশালী জলপ্রপাত। নায়াগ্রা জলপ্রপাতের এক-তৃতীয়াংশ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। একে আমেরিকান ফলস বলা হয়। বাকি দুটি অংশ কানাডায়। এই দুটিকে বলা হয় 'কানাডিয়ান ফলস'। এর আকৃতি ঘোড়ার খুরের মতো অনেকটা বাঁকা। জলপ্রপাতটি মূলত তিনটি জলপ্রপাত নিয়ে ঘটিত।
সবচেয়ে বড় জলপ্রপাতটিকে বলা হয় হর্সশু ফলস বা কানাডা ফলস। এটি প্রায় ১৬৭ ফুট উচ্চতা থেকে ২৬০০ ফুট প্রসস্ত হয়ে জলের স্রোত নীচে প্রবাহিত হয়। বলা হয়, নায়াগ্রা জলপ্রপাতের প্রায় ৯০ শতাংশ জল এই কানাডা ফলস দিয়ে পতিত হয়। অন্য দুটির মধ্যে একটি আমেরিকান ফলস, যার উচ্চতা ৭০ ফুট এবং ১৬০০ ফুট চওড়া। অন্যটির নাম ব্রাইডল ভেইল ফলস। আমেরিকা থেকে জলপ্রপাতটি পিছন থেকে দেখতে হয় এবং কানাডা থেকে সরাসরি সামন থেকে দেখা যায়, ফলে সম্পূর্ণ জলপ্রপাতটি ভালোভাবে দেখতে হলে আপনাকে যেতে হবে কানাডায়। এখানে রংধনু দেখতে আকাশের দিকে তাকাতে হয় না, জলপ্রপাতের জলরাশিতেই পর্যটকরা মুগ্ধ হয়ে রংধনু দেখে থাকে। এখানে প্রতি বছর প্রায় ৩০ মিলিয়ন পর্যটক ভ্রমণ করে থাকেন। বসন্ত ও গ্রীষ্মকালে এই মনোরম জলপ্রপাতটি পরিদর্শনের সেরা সময়। এখানে রয়েছে প্রজাপতি ভাণ্ডার, যেখানে দুই হাজারেরও বেশি প্রজাতির প্রজাপতি রয়েছে।  আরও রয়েছে নায়াগ্রা অ্যাকোরিয়াম, মিউজিয়াম, নায়াগ্রা অ্যাডভেঞ্চার থিয়েটার এবং ওয়ার্লপুল স্টেট পার্ক।

নায়াগ্রা জলপ্রপাত সৃষ্টির ইতিহাস

নায়াগ্রা জলপ্রপাতের উৎপত্তির ইতিহাস বেশ আকর্ষণীয়। নায়াগ্রা নদীর বয়স প্রায় ১২০০ বছর। তারও আগে, প্রায় ১৮০০ বছর পূর্বে, তখন ওন্টারিওর ২ থেকে ৩ কিলোমিটার দক্ষিণ অংশ বরফে ঢাকা ছিল। সময়ের সাথে সাথে গ্রীষ্মমন্ডলীয় পরিবর্তনের ফলে বরফ গলতে শুরু করে। তখন গ্রেট লেকস বেসিনে প্রচুর জল জমতে থাকে এবং ইরি হ্রদ, নায়াগ্রা নদী এবং ওন্টারিও হ্রদের জল একসাথে মিশে এই বিশাল জলপ্রপাতটি তৈরি করে। আপনি যখন জলপ্রপাতের দিকে তাকাবেন তখন এর বিশালতা ও পানি আছড়ে পড়ার শব্দে আপনার বুক কেঁপে উঠবে, তার পরেও আপনি এর মনোমুগ্ধকর আকর্ষণকে উপেক্ষা করতে পারবেন না।  এই আকর্ষণই অ্যাডভেঞ্চার-প্রেমীদের নায়াগ্রা স্পর্শে বারবার নিয়ে আসে। 


নায়াগ্রা জলপ্রপাত প্রকৃতির এক অসীম সৃষ্টি। ১৬৭ ফুট উঁচু এই জলপ্রপাত থেকে প্রতি সেকেন্ডে ৬৪ হাজার ৭৫০ ঘনফুট পানি নদীতে পড়ে। মেড অফ দ্য মিস্ট' বোটটি পর্যটকদের নায়াগ্রার অপার সৌন্দর্যের কাছাকাছি নিয়ে যাওয়ার জন্য জলপ্রপাতটিতে সর্বদা অপেক্ষা করে। এই বোটে করে আপনি জলপ্রপাতটিকে আরো কাছ থেকে দেখতে পারবেন। এখানে ঝরে পড়া জলপ্রপাতের গর্জন কানে সুরেলা সঙ্গীতের মতো শোনায়। সামগ্রিকভাবে, জলপ্রপাতটি বিস্ময় এবং রোমাঞ্চের এক সম্ভার।

আরও পড়ুন: পাহাড়ের রানী দার্জিলিং এর দর্শনীয় স্থান, যাওয়ার উপায় এবং ভ্রমণ গাইড

Post a Comment

Previous Post Next Post