শীতে শুষ্ক ও তৈলাক্ত ত্বকের যত্ন যেভাবে নিবেন ও ডাক্তারি পরামর্শ

 

শুষ্ক ও তৈলাক্ত ত্বকের ঘরোয়া যত্ন
ছবি: শুষ্ক ত্বক

আবার শীত এসে গেছে, এই ঋতু আমাদের অনেকের প্রিয়। কিন্তু এই প্রিয় মৌসুমে আমরা অনেকেই ত্বকের সমস্যায় ভুগি। ঠান্ডা শীতল ছোঁয়া শরীরের জন্য আরামদায়ক হলেও ত্বকের জন্য নয়। আবহাওয়ার কারণে এ সময় ত্বক সংক্রান্ত কিছু সমস্যা দেখা দেয়। শীত শুরু হলে ত্বকের সমস্যাও বেড়ে যায়। একবার ত্বকের সমস্যা দেখা দিলে আর কিছুই করার থাকে না। তাই শীতের শুরু থেকেই নিয়মিত ত্বকের যত্ন নেয়া প্রয়োজন। তাহলে আপনার ত্বক থাকবে সতেজ ও তরতাজা।

সাধারণত ত্বক তিন প্রকার হয়ে থাকে- তৈলাক্ত, শুষ্ক ও মিশ্র। তৈলাক্ত ত্বক যাদের, তারা অতিরিক্ত তেল থেকে রেহাই পেয়ে শীতে বেঁচে গেলেও মুখ ধোয়ার পর ত্বক শুষ্ক ও টান টান হয়ে যায়। আর যাদের ত্বক একটু শুষ্ক তাদের জন্য শীত দুঃস্বপ্নের মতো। 

শুষ্ক ত্বকের সমস্যা সম্পর্কে চর্ম ও যৌনরোগ বিভাগের অধ্যাপক ড. শহীদুল্লাহ সিকদার বলেন, শীতের কারণে ত্বক অতিরিক্ত শুষ্ক হয়ে যায়। এটি কিছু রোগের কারণেও হতে পারে। নিয়মিত ময়েশ্চারাইজার লাগানোর পরও যদি অতিরিক্ত ত্বক ফেটে যায় এবং শুষ্ক হয়ে যায়, তাহলে বুঝতে হবে সমস্যা রয়েছে। সেক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

শুষ্ক ত্বক কিভাবে বুঝবেন?

ত্বক যদি শুকনো ও মলিন লাগে এবং গোসলের পর বা মুখ ধোয়ার পর ত্বক টান টান লাগে তাহলে ধরে নিতে হবে আপনার তক শুষ্ক। এছাড়াও ত্বকের চামড়া সাদাটে ভাব চলে আসা অর্থাৎ মৃত কোষ বেড়ে যাওয়া এবং লালচে ভাব দেখা দেয়া শুষ্ক ত্বকের লক্ষণ। 

ত্বক শুষ্ক হলে কি করবেন?

সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর আপনার ত্বকের ধরন বুঝে ফেস ওয়াশ বা হালকা ময়েশ্চারাইজিং সাবান দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। কোন অবস্থাতেই ক্ষারযুক্ত সাবান ব্যবহার করা যাবে না। ক্ষারযুক্ত সাবান ব্যবহার করলে ত্বক আরও রুক্ষ হয়ে যাবে। এছাড়াও, আপনি প্রতিদিন স্ক্রাব করতে পারেন। ত্বক পরিষ্কার করতে এবং মৃত কোষ দূর করে ত্বককে উজ্জ্বল করতে এর কোনো বিকল্প নেই। কিছুদিন পর পর গাজরের রস মুখে দিন এবং কিছুক্ষণ রেখে ধুয়ে ফেলুন। এতে করে কালো দাগ কমে যাবে।

নিয়ম মেনে গোসল করা এবং গোসলের পর যা করতে হবে

শীতের গোসলে সাবানের ব্যবহার যত কম করা যায় তত ভাল। সাবান ব্যবহার করলেও ময়েশ্চারাইজিং সাবান ব্যবহার করুন। এতে ত্বকের রুক্ষ ভাব কমে যাবে। শীতকালে শরীরে তেল ব্যবহার করা যেতে পারে। অলিভ অয়েল, নারকেল তেল বা আরও অনেক তেল শরীরে ব্যবহার করতে পারেন। তবে তেল ব্যবহারের আগে নিশ্চিত হয়ে নিন যে এটি আপনার ত্বকের জন্য উপযুক্ত কিনা। আপনি চাইলে তেল হালকা গরম করে সারা শরীরে ম্যাসাজ করতে পারেন। গোসলের পর এটি করলে বেশি উপকার হবে।

শীতকালে গরম পানি দিয়ে অনেকের গোসল করার অভ্যাস রয়েছে। তবে গরম পানি দিয়ে গোসল করলেও গরম পানি দিয়ে মুখ ও মাথা ধুতে পারবেন না। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অতিরিক্ত গরম পানি ত্বকের কোষের ক্ষতি করে। এতে ত্বকের আর্দ্রতা কমে যায়। তাই কুসুম গরম পানিতে গোসল করুন। গোসলের সময় পানিতে কয়েক ফোঁটা জোজোবা বা বাদাম তেল যোগ করলে ত্বককে ময়েশ্চারাইজিং এবং মসৃণ করবে। গোসলের পরে এবং প্রতিবার মুখ ধোয়ার পরে একটি ময়েশ্চারাইজার বা লোশন ব্যবহার করুন। এতে ত্বকের আর্দ্রতা বজায় থাকবে।

ত্বকের যত্নে ময়েশ্চারাইজারের ব্যবহার

শীতের শুরুতে ত্বকের যত্নে ভালো ময়েশ্চারাইজার বেছে নিন। এমন ময়েশ্চারাইজার বাছাই করতে হবে, যাতে তেলের পরিমাণ বেশি থাকে। বাদাম তেল বা অ্যাভোকাডো সমৃদ্ধ ময়েশ্চারাইজার ক্রয় করুন। এটি ত্বকের প্রাকৃতিক আর্দ্রতা ধরে রাখতে সাহায্য করে। যতবার ত্বক শুষ্ক মনে হয় ততবার ব্যবহার করবেন।

শীতে সানস্ক্রিন ব্যবহার

শীতে সানস্ক্রিন ব্যবহার করার দরকার নেই, এটি একটি ভুল ধারনা। শীত বা গ্রীষ্ম কাল, সব সময়ই সরাসরি সূর্যের আলো ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। অনেকেই শীতের সকালে বা দুপুরে রোদে বসতে পছন্দ করেন, যদি সানস্ক্রিন ব্যবহার না করা হয়, তাহলে ত্বকের ক্ষতি হবে। শীতেও বাইরে বের হওয়ার অন্তত ৩০ মিনিট আগে মুখে, হাতে ও পায়ে সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন। 

পরিমিত পানি পান

শীতকালে অনেকেই পানি কম পান করেন। এটি ত্বকের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। ত্বকের জন্য আপনাকে শুষ্ক আবহাওয়ায় সুস্থ থাকতে বেশি করে পানি পান করতে হবে। শরীরে পানির অভাব দেখা দিলে একদিকে যেমন বিভিন্ন চর্মরোগের জন্ম দেয়, তেমনি ত্বক শুষ্ক ও রুক্ষ হয়ে যায়; অন্যদিকে পানির অভাবে অনেক শারীরিক সমস্যার সৃষ্টি হয়।

ঘুমানোর আগে রাতে যা করতে হবে

রাতে ঘুমানোর আগে নিয়মিত পরিমাণের চেয়ে একটু বেশি ময়েশ্চারাইজিং লোশন ব্যবহার করলে ত্বকের শুষ্ক ভাব চলে যাবে। ত্বকের আর্দ্রতা ও উজ্জ্বলতা ধরে রাখতে রাতে ঘুমানোর আগে অলিভ অয়েল বা লিকুইড প্যারাফিন লাগাতে পারেন। এছাড়াও, যারা ছোট তারা ঘুমানোর আগে রাতে পেট্রোলিয়াম জেলি ব্যবহার করতে পারেন। ৩০ বছর বয়সের পর নাইট ক্রিম ব্যবহার করা ভালো।

চর্ম ও যৌনরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. জাহেদ পারভেজ, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ

আরও পড়ুন: গরম পানিতে গোসল, স্বাস্থ্যের জন্য কতটা ক্ষতিকর! কিভাবে ক্ষতি এড়ানো যাবে?

আপও পড়ুন: সর্দি কেন হয় এবং হলে কী করবেন? সর্দি-কাশি সারানোর ঘরোয়া উপায়


রেফারেন্স: দৈনিক প্রথমআলো

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন